Information

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ: সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি। তিনি বাঙালি জাতির জন্য গর্ব। বাংলার মাটিকে তিনি সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন। পাকিস্তানি শাসকদের অত্যাচার-নিপীড়নের মুখে তিনি  দামিয়ে যাননি। তিনি দেখিয়ে দিয়েছেন কিভাবে বাংলার মানুষকে পাকিস্তানি শাসকদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের দার মুক্ত করতে হয়। তিনি নানা সময়ে নানা মুহূর্তে নানা বক্তব্যের মাধ্যমে আমাদের দেশের মানুষ তথা দেশের মুক্তিযোদ্ধাদের অনুপ্রেরণা জাগিয়েছেন। আজকে আমরা বঙ্গবন্ধুর সেই অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য গুলো নিয়েই আলোচনা করব।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলার জনতার জন্য যে সকল অনুপ্রেরণামূলক বক্তব্য পেশ করেছেন তা নিয়ে আজকে আমাদের পরিবেশনা। আলোচনা পূর্বেই চলুন বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চাঞ্চল্যকর কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের ১৭ই মার্চ গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম শেখ লুৎফর রহমান এবং মা সায়েরা বেগম। বিশ্বব্যাপী বাঙ্গালীদের উপরে করা এক জরিপে বিবিসি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি হিসেবে নির্বাচিত করেন। ১৯৪৯ সালে যখন আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠন করা হয় তখন দলের প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে বঙ্গবন্ধু কে নিযুক্ত করা হয় এবং ১৯৫৩ সালে সাধারণ সম্পাদকের পদ শূন্যপদ ঘোষিত হলে বঙ্গবন্ধুকে সাধারণ সম্পাদক নিযুক্ত করা হয়। মুখ্য বিষয় হচ্ছে ১৯৬৬ সালে আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভাপতি হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী মারা গেলে বঙ্গবন্ধুকে সভাপতি নিযুক্ত করা হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

বঙ্গবন্ধুর আন্দোলনের মধ্যে সবথেকে আলোচিত এবং গ্রহণযোগ্য আন্দোলন হলো ১৯৬৬ সালের ৬ দফা আন্দোলন যা তিনি নিজে উত্থাপিত করেন। পরবর্তীতে ১৯৬৯সালের ২৩শে ফেব্রুয়ারি তে ঢাকায় এক সমাবেশে শেখ মুজিবুর রহমানকে “বঙ্গবন্ধু”উপাধিতে ভূষিত করা হয়। আমাদের এদেশকে “বাংলাদেশ” নামে নামকরণ করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যা ১৯৬৯ সালের ৫ই ডিসেম্বর এক জনসভায় প্রকাশিত করা হয়।  বঙ্গবন্ধু নিজে এ নাম টি প্রকাশ করেন।

7 Easy Ways To Online Income-How To Earn Online Money

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ: বঙ্গবন্ধুর বিখ্যাত উক্তি সমূহ

 

শত হুমকি অন্যায় অত্যাচার এর মুখে ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ রেসকোর্স ময়দানে বঙ্গবন্ধু তাঁর ঐতিহাসিক ভাষণে স্বাধীনতার ইঙ্গিত প্রকাশ করেন। তার ভাষণের ১৮ দিনের মাথায় ২৫ মার্চ কালো রাতে বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার করা হয়। ২৬ মার্চ থেকে এক রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলার মানুষ জেগে ওঠে। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রাষ্ট্রপতি হিসেবে বঙ্গবন্ধুর নাম ঘোষণা করা হয়। যে সরকারকে মুজিবনগর সরকার হিসেবে অভিহিত করা হয়।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অধ্যায় শেষ হয় ১৯৭১ সালের ১৫ই আগস্ট। এদিন বঙ্গবন্ধু সহ তার পরিবারের সকল সদস্যদের গুলি করে হত্যা করা হয়। শুরু হয়ে যায় এক কলঙ্কজনক অধ্যায়ের…

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রখ্যাত উক্তি সমূহ

 ১. এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম!

২. গণআন্দোলন ছাড়া, গণবিপ্লব ছাড়া বিপ্লব হয় না।

৩. অযোগ্য নেতৃত্ব, নীতিহীন নেতা ও কাপুরুষ রাজনীতিবিদদের সাথে কোন দিন একসাথে হয়ে দেশের কাজে নামতে নেই। তাতে দেশসেবার চেয়ে দেশের ও জনগণের সর্বনাশই বেশি হয়।

৪. আমার সবচেয়ে বড় শক্তি আমার দেশের মানুষকে ভালবাসি, সবচেয়ে বড় দূর্বলতা আমি তাদেরকে খুব বেশী ভালবাসি।

৫. যে মানুষ মৃত্যুর জন্য প্রস্তত, কেউ তাকে মারতে পারে না।

৬. যখন তুমি কোন ভদ্রলোকের সাথে খেলবে তখন তোমাকে ভদ্রলোক হতে হবে, যখন তুমি কোন বেজন্মার সাথে খেলবে তখন অবশ্যই তোমাকে তার চাইতে বড় বেজন্মা হতে হবে। নচেত পরাজয় নিশ্চিত।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

৭. প্রধানমন্ত্রী হবার কোন ইচ্ছা আমার নেই। প্রধানমন্ত্রী আসে এবং যায়। কিন্তু, যে ভালোবাসা ও সম্মান দেশবাসী আমাকে দিয়েছেন, তা আমি সারাজীবন মনে রাখবো।

৮. সাম্প্রদায়িকতা যেন মাথাচারা দিয়ে উঠতে না পারে। ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র বাংলাদেশ। মুসলমান তার ধর্মকর্ম করবে। হিন্দু তার ধর্মকর্ম করবে। বৌদ্ধ তার ধর্মকর্ম করবে। কেউ কাউকে বাধা দিতে পারবে না।

৯. সাত কোটি বাঙ্গালির ভালোবাসার কাঙ্গাল আমি। আমি সব হারাতে পারি, কিন্তু বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা হারাতে পারব না।

১০. দেশ থেকে সর্বপ্রকার অন্যায়, অবিচার ও শোষণ উচ্ছেদ করার জন্য দরকার হলে আমি আমার জীবন উৎসর্গ করব।

১১. এ স্বাধীনতা আমার ব্যর্থ হয়ে যাবে যদি আমার বাংলার মানুষ পেট ভরে ভাত না খায়। এই স্বাধীনতা আমার পূর্ণ হবে না যদি বাংলার মা-বোনেরা কাপড় না পায়। এ স্বাধীনতা আমার পূর্ণ হবে না যদি এদেশের মানুষ যারা আমার যুবক শ্রেণী আছে তারা চাকরি না পায় বা কাজ না পায়।

১২. ভিক্ষুক জাতির ইজ্জত থাকে না। বিদেশ থেকে ভিক্ষা করে এনে দেশকে গড়া যাবে না। দেশের মধ্যেই পয়সা করতে হবে।

১৩. যিনি যেখানে রয়েছেন, তিনি সেখানে আপন কর্তব্য পালন করলে দেশের মধ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হতে পারে না।

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

 

১৪. সরকারী কর্মচারীদের জনগণের সাথে মিশে যেতে হবে। তারা জনগণের খাদেম, সেবক, ভাই। তারা জনগণের বাপ, জনগণের ছেলে, জনগণের সন্তান। তাদের এই মনোভাব নিয়ে কাজ করতে হবে।

১৫. সমস্ত সরকারী কর্মচারীকেই আমি অনুরোধ করি, যাদের অর্থে আমাদের সংসার চলে তাদের সেবা করুন।

১৬. গরীবের উপর অত্যাচার করলে আল্লাহর কাছে তার জবাব দিতে হবে।

১৭. জীবন অত্যন্ত ক্ষণস্থায়ী। এই কথা মনে রাখতে হবে। আমি বা আপনারা সবাই মৃত্যুর পর সামান্য কয়েক গজ কাপড় ছাড়া সাথে আর কিছুই নিয়ে যাব না। তবে কেন আপনারা মানুষকে শোষণ করবেন, মানুষের উপর অত্যাচার করবেন?

১৮. দেশের সাধারণ মানুষ, যারা আজও দুঃখী, যারা আজও নিরন্তর সংগ্রাম করে বেঁচে আছে, তাদের হাসি-কান্না, সুখ-দুঃখকে শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতির উপজীব্য করার জন্য শিল্পী, সাহিত্যিক ও সংস্কৃতিসেবীদের প্রতি আহবান জানাচ্ছি।

Bangladesh Air Force Job Circular 2022

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

 

১৯. বাঙ্গালি জাতীয়তাবাদ না থাকলে আমাদের স্বাধীনতার অস্তিত্ব বিপন্ন হবে।

২০. বাংলার মাটিতে যুদ্ধাপরাধীর বিচার হবেই।

২১. গণআন্দোলন ছাড়া, গণবিপ্লব ছাড়া বিপ্লব হয় না।

২২. জনগণকে ছাড়া, জনগণকে সংঘবদ্ধ না করে, জনগণকে আন্দোলনমুখী না করে এবং পরিস্কার আদর্শ সামনে না রেখে কোন রকম গণআন্দোলন হতে পারে না।

২৩. আন্দোলন মুখ দিয়ে বললেই করা যায় না। আন্দোলনের জন্য জনমত সৃষ্টি করতে হয়। আন্দোলনের জন্য আদর্শ থাকতে হয়। আন্দোলনের জন্য নিঃস্বার্থ কর্মী হতে হয়। ত্যাগী মানুষ থাকা দরকার। আর সর্বোপরি জনগণের সংঘবদ্ধ ও ঐক্যবদ্ধ সমর্থন থাকা দরকার।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

 

২৪. অযোগ্য নেতৃত্ব, নীতিহীন নেতা ও কাপুরুষ রাজনীতিবিদদের সাথে কোন দিন একসাথে হয়ে দেশের কাজে নামতে নেই। তাতে দেশসেবার চেয়ে দেশের ও জনগণের সর্বনাশই বেশি হয়।

২৫. রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠানের চারটি জিনিসের প্রয়োজন, তা হচ্ছে: নেতৃত্ব, ম্যানিফেস্টো বা আদর্শ, নিঃস্বার্থ কর্মী এবং সংগঠন।

২৬. ভিক্ষুক জাতির ইজ্জত থাকে না। বিদেশ থেকে ভিক্ষা করে এনে দেশকে গড়া যাবে না। দেশের মধ্যেই পয়সা করতে হবে।

২৭. বাংলার উর্বর মাটিতে যেমন সোনা ফলে, ঠিক তেমনি পরগাছাও জন্মায়! একইভাবে, বাংলাদেশে কতকগুলো রাজনৈতিক পরগাছা রয়েছে, যারা বাংলার মানুষের বর্তমান দুঃখ-দূর্দশার জন্য দায়ী।

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

 

২৮. যদি আমরা বিভক্ত হয়ে যাই এবং স্বার্থের দ্বন্দ ও মতাদর্শের অনৈক্যের দ্বারা প্রভাবান্বিত হয়ে আত্বঘাতী সংঘাতে মেতে উঠি, তাহলে যারা এদেশের মানুষের ভালো চান না ও এখানাকার সম্পদের ওপর ভাগ বসাতে চান তাদেরই সুবিধা হবে এবং বাংলাদেশের নির্যাতিত, নিপীড়িত, ভাগ্যাহত ও দুঃখী মানুষের মুক্তির দিনটি পিছিয়ে যাবে।

২৯. আর সাম্প্রদায়িকতা যেন মাথাচারা দিয়ে উঠতে না পারে। ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র বাংলাদেশ। মুসলমান তার ধর্মকর্ম করবে। হিন্দু তার ধর্মকর্ম করবে। বৌদ্ধ তার ধর্মকর্ম করবে। কেউ কাউকে বাধা দিতে পারবে না।

৩০. পবিত্র ধর্মকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা চলবে না।

৩১। যদি আমরা বিভক্ত হয়ে যাই এবং স্বার্থের দ্বন্দ ও মতাদর্শের অনৈক্যের দ্বারা প্রভাবান্বিত হয়ে আত্বঘাতী সংঘাতে মেতে উঠি, তাহলে যারা এদেশের মানুষের ভালো চান না, এখানাকার সম্পদের ওপর ভাগ বসাতে চান তাদেরই সুবিধা হবে এবং বাংলাদেশের নির্যাতিত, নিপীড়িত, ভাগ্যাহত ও দুঃখী মানুষের মুক্তির দিনটি পিছিয়ে যাবে।

Primary Teacher 3rd Phase Result 2022

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিখ্যাত উক্তি সমূহ

 

৩২। আর সাম্প্রদায়িকতা যেন মাথাচারা দিয়ে উঠতে না পারে। ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র বাংলাদেশ। মুসলমান তার ধর্মকর্ম করবে, হিন্দু তার ধর্মকর্ম করবে, বৌদ্ধ তার ধর্মকর্ম করবে। কেউ কাউকে বাধা দিতে পারবে না।

৩৩। বাঙালি – অবাঙালি, হিন্দু – মুসলমান সবাই আমাদের ভাই, তাদের রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের।

৩৪। পবিত্র ধর্মকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা চলবে না।

৩৫। ভুলে যেয়ো না, স্বাধীনতা পেয়েছো এক রকম শত্রুর সাথে লড়াই করে। তখন আমরা জানতাম, আমাদের এক নম্বর শত্রু পাকিস্থানের সামরিক বাহিনী ও শোষকগোষ্ঠী। কিন্তু, এখন শত্রুকে চেনাই কষ্টকর।

৩৬। শহীদদের রক্ত যেন বৃথা না যায়।

৩৭। বাংলাদেশ এসেছে বাংলাদেশ থাকবে।

৩৮। বাংলার মাটি দু্র্জয় ঘাঁটি জেনে নিক দুর্বৃত্তেরা।

৩৯। বাংলার মাটিতে যুদ্ধাপরাধীর বিচার হবেই।

৪০। ছাত্রদের প্রতি বঙ্গবন্ধুর আহ্বান- ” বাবারা, একটু লেখাপড়া শিখ। যতই জিন্দাবাদ আর মুর্দাবাদ কর, ঠিকমত লেখাপড়া না শিখলে কোন লাভ নেই। আর লেখাপড়া শিখে যে সময়টুকু থাকে বাপ- মাকে সাহায্য কর। প্যান্ট পরা শিখেছো বলে বাবার সাথে হাল ধরতে লজ্জা করো না। দুনিয়ার দিকে খেয়াল করো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button